নোয়াখালীতে দেড় শতাধিক পূজা মন্ডপে প্রতিমা তৈরি সম্পন্ন

শুক্রবার, অক্টোবর ১৬, ২০১৫

SAM_076020151015042257

ইকবাল হোসেন সুমন,  নোয়াখালী : হিন্দু ধম্বালম্বীদের সবচেয়ে বড় শারদীয় দুর্গাপূজা আগামী সোমবার মহাষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে নোয়াখালীতে দেড় শতাধিক পুজামন্ডপে দুর্গাপূজা শুরু হবে।  এ উপলক্ষে চলছে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা ও ব্যাপক আয়োজন। দুর্গাপূজার জন্য প্রতিমা বানানো সম্পন্ন হয়েছে এখন শুধু দুর্গাপূজা শুরুর অপেক্ষা। জেলার ৯টি উপজেলায় ১৫৩টি পুজা মন্ডপ তৈরি করা  হয়েছে পুজামন্ডপ। এর  মধ্যে সবচেয়ে  বেশি প্রতিমা তৈরি করা  হয়েছে  চৌমুহনীতে। যাতায়াত ব্যবস্থা ভালো থাকার কারণে প্রতি বছর  চৌমুহনীর শ্রী শ্রী রাধামাধব জিউর মন্দির ও শ্রী শ্রী রাম ঠাকুর আশ্রমে মন্ডপের প্রতিমা তৈরির কাজ সম্পন্ন হয়েছে। যা প্রায় এক  থেকে  দেড় মাস ধরে চলে প্রতিমা কারিগরদের নিপুণ হাতের ছোঁয়ায় বিভিন্ন  দেব-দেবির তৈরির এ কাজ। খড়,বাঁশ মাটিসহ বিভিন্ন সামগ্রী দিয়ে তৈরি হয় এক একটি প্রতিমা। প্রায় সবকটি প্রতিমার এখন মূল অবয়ব তৈরি হলেও  শেষ মুহূর্তে তা ফিনিশিং  বেশির ভাগ সম্পন্ন হয়েছে । এগুলো  রোদে শুকিয়ে  দেয়া হয়েছে রং করার পর এখন চলছে সাজ সজ্জা। আর তাই এ প্রতিমা তৈরির কারিগরদের এখন বিশ্রাম  নেয়ার সময় নেই। পূজার সময় যত ঘনিয়ে আসছে ততই তাদের ব্যস্ততা বাড়ছে।
 চৌমুহনী রাধামাধব জিউর মন্দিরে গিয়ে  দেখা যায়, প্রতিমা তৈরির দ্বিতীয় ধাপ শেষে তৃতীয় ধাপে চলছে সাজ সজ্জা । এখানে কথা হয় প্রধান কারিগর অমল পালের সহকারীদের সঙ্গে। চারজন কারিগর সমানতালে কাজ করে যাচ্ছেন। একজন রং তৈরি করছেন। আর তিনজন প্রতিমার গায়ে রং লাগাচ্ছেন। কাজের ফাঁকে কথা হয় এক কারিগরের সঙ্গে। তারা জানান, গত  দেড় মাস থেকে দিন-রাত পরিশ্রম করে প্রতিমা গুলো তৈরি করা হয়েছে। এর রোদে শুকিয়ে  নেয়া হয়েছে। আর এখন চলছে রংয়ের কাজ। কয়েক স্তরে রং লাগানোর পর এবার স্প্রে করে দেয়া  হয়েছে । তার পর চলছে সাজ সজ্জার কাজ। সাজ সজ্জার পরেই প্রতিমা গুলো চলে যাবে যার যার পূজা মন্ডপে। সব মিলে তারা এখানে ৭ সেট অর্থাৎ ৪৯টি প্রতিমা তৈরি করছেন। তার পাশেই প্রায় ৩‘শ গজ দূরে শ্রী শ্রী রাম ঠাকুর আশ্রম  কেন্দ্রে প্রতিমা তৈরি শেষে চলছে সাজ সজ্জার কাজ। প্রতি বছরের মতো এবারও শরীয়তপুর থেকে আসা প্রতিমার কারিগররা নিপুন হাঁতের  ছোঁয়ায় তৈরি করেছেন দুর্গা, গনেশ, অসুরসহ নানা রকেমর  দেব- দেবির প্রতিমা।
কারিগরা রতন পাল জানান, সময় মতো সব প্রতিমা তৈরি সম্পন্ন করা হচ্ছে। যা দিনে রাতে কাজ করে শেষ  করা হয়েছে। শুধু যে মাটি দিয়ে প্রতিমা তৈরি করা তা নয়। এবার নিজেদের  সেরা করে তোলার লক্ষ্যে খোদ বাড়ি প্রাঙ্গনে মঙ্গলা পুজা কমিটির উদ্যোগে সিমেন্ট দিয়ে ২০ ফুটের মহাদেবের প্রতিমা তৈরি করা হয়েছে। এভাবে অনেকে পূজা কমিটি প্রতিযোগিতামূলক ভাবে প্রতিমা ও মন্ডপে তৈরি  করছেন।
 নোয়াখালী জেলা সদরের শ্রী শ্রী ঠাকুর রামচন্দ্রদেবের মন্দিরের পূজা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সুপম চক্রবর্তী জানান, প্রতি বছরের মতো এবারোও এখানে প্রতিমা তৈরি করার কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। যা তৈরি করতে প্রায় ১লাখ ২০ হাজার টাকার মতো খরচ হয়েছে। এখানো প্রতি বছর ২০/৩০ হাজার দর্শনার্থীদের সমাগম ঘটে। এবারোও ভালো লোকজনের সমাগম ঘটবে বলে আশা করছি।
জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সহ-সভাপতি বাবু বিনয় কিশোর রায় জানান, এবার  জেলায়  মোট ১৫৩টি মন্ডপে পূজা আয়োজন করা হয়েছে এর এর মধ্যে সদরে ১৭টি,বেগমগঞ্জে ২১টি, সোনাইমুড়িতে ১০টি, চাটখিলে ৯টি, সেনবাগে ১২টি, কোম্পানীগঞ্জে ১২টি, কবিরহাটে ১৬টি, সুবর্নচরে ২৫টি এবং হাতিয়ায় ৩১টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে।


করোনার ‘উদ্বেগজনক’ নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন

সুবর্ণচরে মোটরসাইকেল-ট্রলির মুখোমুখি সংঘর্ষে সেনা সদস্য নিহত

ধান ক্ষেত থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার

ভাসানচর থেকে পালাতে গিয়ে ২৩ রোহিঙ্গা আটক

১ ডিসেম্বর থেকে বিআরটিসি বাসে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া

দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন খালেদা জিয়া

ভূমিকম্পে কাঁপল দেশ

মেয়র পদ থেকে বরখাস্ত জাহাঙ্গীর আলম

ছেলে লন্ডনে তারেকের ‌বডিগার্ড, বাবা দেশে নৌকার মাঝি!

করোনায় বেড়েছে মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত

সপ্তম ধাপে ভাসানচর পৌঁছেল ৩৭৯জন রোহিঙ্গা

সেনবাগে ভোটকেন্দ্র সংলগ্ন এলাকা থেকে দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার

চাঁদপুরে বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেল তিন মাস্টার্স শিক্ষার্থীর

পুত্রবধূকে যৌতুকের জন্য পিটিয়ে হত্যা

হাতিয়ায় ইউনিয়ন যুবলীগের সম্মেলন, সভাপতি মাইন সম্পাদক মো: মিল্লাদ

এই সম্পর্কিত আরো