উত্তরাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি, মধ্যাঞ্চলে অবনতি

বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৭, ২০১৭

20799300_494312054253729_3982636668083575457_nডেস্ক নিউজ : দেশের উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন স্থানের বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে শুরু করেছে। অপর দিকে মধ্যাঞ্চল  বন্যা পরিস্থিতি অবনতিশীল রয়েছে। সিরাজগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি কিছুটা স্থিতিশীল রয়েছে।

টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা বাসস্ট্যান্ড বাজারে বন্যার পানি ঢুকেছে। ছুঁইছুঁই করছে ঢাকা থেকে উত্তরে যোগাযোগের প্রধান সড়ক। জামালপুরের তারাকান্দি-ভূঞাপুর সড়ক ভেঙে উত্তরবঙ্গে যমুনা ফার্টিলাইজার কারখানার সার সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। নওগাঁয় প্রায়ই বাঁধ ভেঙে নতুন নতুন এলাকা যেমন প্লাবিত হচ্ছে— তেমনি বাঁধ ভেঙে আরো প্লাবনের আশঙ্কা রয়েছে। ফরিদপুরে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে।

এদিকে উত্তরাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতি উন্নতি হতে শুরু করেছে। তবে দক্ষিণ-মধ্যাঞ্চল বন্যা পরিস্থিতি অবনতিশীল রয়েছে। আর সিরাজগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি কিছুটা স্থিতিশীল রয়েছে। বন্যাদুর্গত এলাকার পরিস্থিতি সরাসরি দেখতে আগামী রোববার দিনাজপুর ও কুড়িগ্রামে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, কুড়িগ্রাম, জামালপুর, গাইবান্ধা, বগুড়ার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে শুরু করেছে। মানিকগঞ্জ, ফরিদপুর, রাজবাড়ী, মুন্সীগঞ্জ, শরীয়তপুরের বন্যা পরিস্থিতি অবনতিশীল রয়েছে। সিরাজগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি কিছুটা স্থিতিশীল রয়েছে। গঙ্গা অববাহিকার পানি বৃদ্ধি পেলেও তা বিপৎসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এ ছাড়া মধ্যাঞ্চলে ঢাকার চতুর্দিকের ৫টি নদীর পানি বিপৎসীমার ২৮ সেন্টিমিটার হতে ১২৫ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

এ ছাড়া গঙ্গা-পদ্মা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলেও তা বর্তমানে বিপৎসীমার প্রায় ৬৭ থেকে ১৩৪ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। মেঘনা অববাহিকায় বন্যা পরিস্থিতি আগামী ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টায় উন্নতি অব্যাহত থাকবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বন্যার পূর্বাভাসে আরো বলা হয়, ব্রহ্মপুত্র-যমুনার ভারতীয় অংশের আগামী ২৪ থেকে ৩৬ ঘণ্টায় গড়ে ৩০ সেন্টিমিটার পানি হ্রাস পেতে পারে। বাংলাদেশ অংশের ব্রহ্মপুত্র-যমুনার বিভিন্ন পয়েন্টে আগামী ৭২ ঘণ্টায় পানি হ্রাস অব্যাহত থাকবে। গঙ্গা-পদ্মা নদীর পানি বৃদ্ধি আগামী ৪৮ ঘণ্টা অব্যাহত থাকবে, তবে এই নদীর পানি বৃদ্ধির হার আগের তুলনায় কমে আসছে এবং বিপৎসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হবে। ব্রহ্মপুত্র-যমুনার পানি সমতল নুনখাওয়া, চিলমারী, বাহাদুরাবাদ ও সারিয়াকান্দি পয়েন্টে হ্রাস পেয়েছে, অপরদিকে সিরাজগঞ্জ পয়েন্টে ৪ সেন্টিমিটার বেড়েছে।

টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা বাসস্ট্যান্ড বাজারে বন্যার পানি ঢুকেছে। এখন ছুঁইছুঁই করছে ঢাকা থেকে উত্তরে যোগাযোগের প্রধান সড়ক। বালুর বস্তা ফেলে মহাসড়কে পানি প্রবেশ ঠেকানোর চেষ্টা করছেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের লোকজন, পুলিশ ও স্থানীয়রা। এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আর এক-দেড় ফুট পানি বাড়লেই মহাসড়কে ডুবে যাবে। তাই সবাই মিলে বালুর বস্তা ফেলে রক্ষার চেষ্টা করছে।

এদিকে জেলার বিভিন্ন এলাকায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতির খবর পাওয়া গেছে। এরই মধ্যে ১৪৭টি বিদ্যালয়ে পাঠদান স্থগিত করা হয়েছে। আর সাতটি বিদ্যালয় নদীভাঙনে সম্পূর্ণ বিলীন হয়ে গেছে। প্রতিনিয়ত পানির চাপ বাড়ছে।

কালিহাতী উপজেলার শল্লা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল আলিম বলেছেন, হাতিয়া গ্রামের একটি বেড়িবাঁধ ভেঙে তার ইউনিয়নের ১৭ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। সদর উপজেলার ঘারিন্দা ইউনিয়নে ঝিনাই নদীর বাঁধ ও কালিহাতী উপজেলার হাতিয়া বাঁধ ভেঙে আরো অন্তত ২৬টি গ্রাম নতুন করে বন্যাকবলিত হয়েছে।

জামালপুর : তারাকান্দি-ভূঞাপুর সড়ক ভেঙে উত্তরবঙ্গে যমুনা ফার্টিলাইজার কারখানার সার সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। জামালপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী নবকুমার চৌধুরী জানিয়েছেন, তারাকান্দি উপজেলার আওনা ইউনিয়নের ইস্তল এলাকায় তারাকান্দি-ভূঞাপুর সড়ক ২০ মিটার ভেঙে গেছে। এখান দিয়ে পানি ঢুকে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড বালুভর্তি ব্যাগ ফেলে মেরামতের চেষ্টা করছে। এ ছাড়া সড়কটি অনেক জায়গায় ফুটো হয়ে সেখান দিয়ে পানি ঢুকছে। এ ছাড়া যমুনার পানি সামান্য হ্রাস পেলেও জামালপুরের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনার পানি ১০ সেন্টিমিটার হ্রাস পেয়ে বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে বিপৎসীমার ১২৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রামের নয়টি উপজেলার বিস্তীর্ণ এলাকা বন্যার কবলে রয়েছে— এতে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে এসব এলাকার লাখ লাখ মানুষ। পানি উঠে পড়ায় বন্ধ হয়ে গেছে জেলার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। ব্যাহত হচ্ছে বিভিন্ন হাসপাতালের চিকিৎসাসেবা। বৃহস্পতিবার ধরলা ও ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এদিকে নানা সমস্যার সঙ্গে রোগব্যাধিতেও আক্রান্ত হচ্ছে বানভাসিরা। তাদের চিকিৎসায় অর্ধশতাধিক মেডিকেল টিম মাঠপর্যায়ে কাজ করছে— মজুদ রাখা হয়েছে জরুরি ওষুধ ও খাবার পানি।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার সকালে কুড়িগ্রাম ফেরিঘাট পয়েন্টে ধরলা নদীর পানি বিপৎসীমার ৫৬ সেন্টিমিটার এবং চিলমারী পয়েন্টে ব্রহ্মপুত্র নদের পানি বিপৎসীমার ৬৭ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।

কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক আবু ছালেক মোহাম্মদ ফেরদৌস খান জানান, জেলার নয়টি উপজেলার ৬২টি ইউনিয়নের ৮২০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে এক লাখ ১৭ হাজার ৩০২টি পরিবারের চার লাখ ৭৯ হাজার ৮২০ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বন্যাদুর্গতদের ইতিমধ্যে ৮৫১ দশমিক ৩৮০ মেট্রিক টন জিআর চাল বিতরণ করা হয়েছে। জিআর ক্যাশ বিতরণ করা হয়েছে ২৩ লাখ পাঁচ হাজার টাকা। এ ছাড়া দুই হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে। এখনো ১৫০ টন চাল ও সাড়ে নয় লাখ টাকা মজুদ রয়েছে বলে জানান তিনি।

নীলফামারী : ডিমলায় তিস্তার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের দুর্ভোগ এখনো কাটেনি। ৫ দিন থেকে তিস্তার ডান তীর বাঁধে আশ্রয় নেয়া ৩৩ পরিবার এখনো বাড়ি ফিরতে পারেনি। তাদের মাঝে জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা এটিএম আখতারুজ্জামান শুকনো খাবার বিতরণ করেছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে তিস্তা ব্যারাজের ডালিয়া পয়েন্টে বিপৎসীমার ৫০ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়েছে।

লালমনিরহাট : হাতীবান্ধা উপজেলার মেডিকেল মোড় রেলগেটের পাশে প্রায় একশ’ গজ রেললাইনের নিচের মাটি সরে গিয়ে বিশাল গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এতে করে ৫ দিন ধরে বুড়িমারী স্থলবন্দরের সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

এদিকে বন্যার্তদের সহযোগিতা করতে এগিয়ে এসেছেন সেনাবাহিনী ও বিজিবির সদস্যরা। তিস্তা, ধরলা, সানিয়াজানসহ সব নদ-নদীর পানি এখন বিপৎসীমার অনেক নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। জেলার ৫টি উপজেলার ২টি পৌরসভা ও ৩৫টি ইউনিয়নের বন্যা পরিস্থিতির অনেকটা উন্নতি হলেও বন্যাকবলিত এলাকার লোকজন চরম ভোগান্তিতে রয়েছে।

সিরাজগঞ্জ : বেলকুচি উপজেলার নাগগাঁতি ও বউড়া গ্রামে বন্যার পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

নওগাঁ : প্রায়ই বাঁধ ভেঙে নতুন নতুন এলাকা যেমন প্লাবিত হচ্ছে— তেমনি বাঁধ ভেঙে আরো প্লাবনের আশঙ্কা রয়েছে। এতে করে আড়াই লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে।

ছোট যমুনা নদীর ফ্লাডওয়ালের আউটলেটগুলো দিয়ে নওগাঁ শহরে পানি ঢুকছে। শহরের ডিগ্রির মোড়, জেলা প্রশাসকের বাসভবন, পুলিশ সুপারের বাসভবন, জেলা পরিষদের ডাকবাংলো, বিয়াম স্কুল অ্যান্ড কলেজসহ শহরের বেশির ভাগ এলাকা এক-দেড় ফুট পানির নিচে। এদিকে নওগাঁ সদর উপজেলায় ছোট যমুনার বাঁধ ভেঙে নতুন করে আরো তিনটি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়েছে।

ফরিদপুর: বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে, শতাধিক গ্রাম প্লাবিত হয়ে লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপসহকারী প্রকৌশলী জহিরুল ইসলাম জানিয়েছেন, গত ১২ ঘণ্টায় পদ্মার পানি গোয়ালন্দ পয়েন্টে ১৬ সেন্টিমিটার বেড়ে বিপৎসীমার ৯২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় গোলডাঙ্গী-মোহাম্মদপুর সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। পদ্মা ছাড়াও আড়িয়াল খাঁ, কুমার ও মধুমতী নদীর পানিও বিপৎসীমার ওপরে বইছে। বন্যার কারণে নিম্নাঞ্চলের ২৯টি স্কুল বন্ধ রাখা হয়েছে।

মুন্সীগঞ্জ : নিম্নাঞ্চলে আরো কিছু এলাকা প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে শ্রীনগর, লৌহজং ও টঙ্গীবাড়ি উপজেলার কয়েক হাজার পরিবার। পদ্মা তীরের বাড়িঘর জলমগ্ন ছাড়াও বহু ফসলি জমি তলিয়ে গেছে। চর এলাকায় বানভাসি মানুষ দুর্ভোগে আছেন বেশি। পদ্মার পানি বৃহস্পতিবার সকালে ভাগ্যকূল পয়েন্টে বিপৎসীমার ৬ দশমিক ১৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) : রূপগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে বাড়ছে পানি। দ্রুত নদীর পানি বাড়ার কারণে বন্যার আশঙ্কা রয়েছে। রূপগঞ্জের তিনটি বাঁধ রক্ষা ও বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ইতিমধ্যে প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে জেলা প্রশাসন।

Save

ভারতে সংক্রমণ বাড়ছে, পাঁচ রাজ্যে ‘সতর্কতা

সিংহের গর্জন করে বাঘের মতো মরতে চাই: কাদের মির্জা

ফেনীতে ধর্ষণ মামলায় পুলিশ কনস্টেবল গ্রেপ্তার

শনিবার প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

করোনায় আরও ১১ মৃত্যু, শনাক্ত ৪৭০

আন্দামানে উদ্ধার রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পাঠাতে চায় ভারত

হাতিয়ায় হরণী ইউনিয়ন যুবদলের কর্মী সম্মেলন

কারাগারে মুশতাকের মৃত্যুর প্রতিবাদে শাহবাগ অবরোধ

তিন বছর ধরে ছাত্রীকে ধর্ষণ-ভিডিও ধারণ

মোটরসাইকেল না দেওয়ায় খুন: আসামির যাবজ্জীবন

ফেনী-লক্ষীপুর মহাসড়কে চাঁদাবাজি যমুনা হাই-ডিলাক্সের গাড়ি চলাচল বন্ধ

চসিক নির্বাচন : কারচুপির অভিযোগে সিইসি ও মেয়রের বিরুদ্ধে মামলা

২৪ ঘণ্টায় আরও পাঁচ মৃত্যু, শনাক্ত ৪২৮

কোম্পানীগঞ্জে নাশকতার অভিযোগে আটক ৩ 

নোয়াখালীতে ঘরে ঢুকে যুবককে অস্ত্র ঠেকিয়ে গুলি, আতংকে দাদীর মৃত্যু

এই সম্পর্কিত আরো