সোনাপুর থেকে নিখোঁজ নাছরিন হাতিয়ায় নিজ বাড়িতে ফিরেছে

রবিবার, অক্টোবর ১৮, ২০২০


স্টাফ রিপোর্টার : হাতিয়া থেকে চট্টগ্রাম যাওয়ার পথে সোনাপুর বাঁধন কাউন্টার থেকে হারিয়ে যাওয়া নাছরিন ১০ দিন পর আজ রবিবার সেচ্ছায় বাড়ি ফিরেছে। বিকাল ৪টায় তাকে হাতিয়া উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ১০ দিন নিখোঁজ থাকার রহস্য এখনো জানা যায় নি। জান্নাতুন নাছরিন হাতিয়া উপজেলার বুড়িরচর জোড়খালী গ্রামের আব্দুর রহমান ছুট্টুর মেয়ে।

দশ দিন নিখোঁজ থাকার ঘটনা, অক্ষত অবস্থায় সেচ্ছায় বাড়ি ফেরা, নিখোঁজের আগে পেটে ব্যথার চিকিৎসা ছাড়াই ভাল হয়ে যাওয়া  এসব প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে কেউ কেউ বলেছেন, পাচারকারীর হাতে পড়ার কাহিনীকে নাটক মনে করছেন।

নিখোঁজের পরদিন নাছরিনের পিতা ছুট্টু হাতিয়া কন্ঠকে জানায়, ৮ অক্টোবর হাতিয়া থেকে আসার পথে বমি করে ক্লান্ত হয়ে যাওয়ায় নাছরিনকে সোনাপুর বাঁধন কাউন্টার বসিয়ে রেখে আমি বমির ঔষধ কিনতে যায়। দশ মিনিট পর ফিরে এসে মেয়েকে পাই নি। ভ্যানেটি ব্যাগটি নাছরিনের হাতেই ছিল। বড় ট্রাভেল ব্যাগটি চেয়ারের পাশে পড়ে ছিল। এরপর থেকে তার মোবাইলও বন্ধ পাওয়া যায়। ভ্যানেটি ব্যাগে নগদ পাঁচ হাজার টাকা ও গলায় ও হাতে প্রায় ২ ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার ছিল। সে কারো প্ররোচনায় ও পরিকল্পিতভাবে বাগিয়ে গেলে অবশ্যই বড় ব্যাগটিও নিয়ে যেত, কারণ ব্যাগের মধ্যে অনেক প্রয়োজনীয় জিনিষ ছিল। তাকে পাচারকারীরাই কৌশলে নিয়ে গেছে।

আজ সন্ধ্যায় নাছরিনের পিতা ছুট্টু হাতিয়া কন্ঠকে জানায়, দুপুর আড়াইটার সময় মেয়ে একাই নলচিরা ঘাট থেকে একটি সিএনজি নিয়ে বাড়ি ফিরেছে। মেয়েটি অজ্ঞান অবস্থায় ছিল। তাই তার মুখ থেকে এখনো কিছুই জানতে পারি নি। তাকে হাতিয়া উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে, জ্ঞান ফিরে এলে সব জানতে পারবো। তিনি আরো বলেন, সিএনজি ড্রাইভার থেকে জেনেছি এক যুবক তাকে চেয়ারম্যান ঘাট থেকে স্পীড বোট দিয়ে নলচিরা ঘাটে এনে সিএনজিতে তুলে দিয়ে সটকে পড়ে।

হাতিয়া হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ডা. সাইফুল হাতিয়া কন্ঠকে জানান, আজ বিকাল ৪টার পর জান্নাতুল নাছরিন(২২) নামে একজন মেয়ে হাসপাতালে এসে ভর্তি হয়েছে। অজ্ঞান হওয়ার বিষয়টি সঠিক নয়। তাকে সুস্থ ও স্বাভাবিকই মনে হয়েছে। সে নিজেই রোগী হিসেবে বলেছে, স্যার আমার শরীরটা খুব দুর্বল মনে হচ্ছে, আমাকে ভর্তি দিন। আমি চিকিৎসা নেব। পরে আমি তার অনুরোধে তাকে ভর্তি দিয়ে মহিলা ওয়ার্ডে পাঠিয়েছি।

মেয়েটির কোন কিছু যেমন স্বর্ণ, মোবাইল এসব হারিয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তর যতবারই জানতে চেয়েছি নাছরিনের পিতা ছুট্টু ততবারই বলেন, ভাই আমি ব্যস্ত পরে কথা বলবো বলেই কল কেটে দেয়।

হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের জানান, ভিকট্রিম উদ্ধার হয়েছে শুনেছি। ঘটনাস্থল সোনাপুর হওয়ায় এবং ভিকট্রিমের বাবা সুধারাম থানায় মামলা করায় বিষয়টি ওরা দেখবে। আমরা মেয়েটিকে ওখানে পাঠিয়ে দেব।

 

হাতিয়ায় ইয়াবা ব্যবসায়ী আটক Inbox

হাতিয়ায় কৃষি উপকরণ, ল্যাপটপ,সাইকেল বিতরণ ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

হাতিয়া পৌরসভা নির্বাচন : দলের মনোনয়ন নিয়ে চলছে তোড়জোড়

হাতিয়ায় শহীদ মিনারে জুতা পায়ে অবসরপ্রাপ্ত সৈনিকদের ফটোসেশন

হাতিয়ায় পল্লী চিকিৎসক ফাতেমা, জীবন বদলে দেওয়ার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত

২৮ ডিসেম্বর প্রথম ধাপে ২৫ পৌরসভায় নির্বাচন

লক্ষ্মীপুরের ডিসি সপরিবারে করোনায় আক্রান্ত

নোয়াখালীতে সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্ধে দুই কিশোরকে খুরের আঘাত

ভয়াবহ হচ্ছে করোনা, প্রাণ গেল আরও ৩৮ জনের

বেগমগঞ্জে ছিনতাই চক্রের ৫ সদস্য আটক

শৌচাগারে না গিয়েই কিশোরের ১৮ মাস পার!

নোয়াখালীতে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

সার্বভৌমত্ব রক্ষায় বাংলাদেশ সদাপ্রস্তুত: প্রধানমন্ত্রী

দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতুর পৌনে ৬ কিলোমিটার

২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ২৮,শনাক্ত ১৮৪৭

এই সম্পর্কিত আরো