ব্লগার নীলয় হত্যা : বন্ধু মিঠুকে খুঁজছে পুলিশ

সোমবার, আগস্ট ১০, ২০১৫

30_Niloy_070815_00013-400x250
ইসমাঈল হুসাইন ইমু : নিলয়ের স্ত্রী আশামণি, শ্যালিকা তন্নীকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে গোয়েন্দা পুলিশ। এর মধ্যে বন্ধু মিঠুকে প্রধান ক্লু হিসেবে বিবেচনা করছেন তারা। ইতোমধ্যে তাদের ফোনকল ও সংগ্রহের জন্য তিনটি মোবাইল কোম্পানির সঙ্গে কথা বলেছেন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা।

নিলয়ের আÍীয়-স্বজনরা ইতোমধ্যে দাবি করেছেনÑ ঢাকায় নিলয়ের সঙ্গে যে মেয়েটি (আশামণি) নিলয়ের স্ত্রী হিসেবে পরিচয় দিচ্ছে সে তার স্ত্রী নয়। ওই মেয়েটিকে তদন্তের আওতায় আনার দাবি জানিয়ে তারা বলেন, পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে তার মুখ থেকেই হত্যার মূল রহস্য বেরিয়ে আসবে।

এদিকে পুলিশ জানায়, খুনিরা দুই সপ্তাহ আগে থেকেই নিলয়ের গতিবিধি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করেছে। এরপর তাকে হত্যা করা হয়। তার বাসার আশপাশেই সার্বক্ষণিক অবস্থান করে দুই খুনি। তাদের মধ্যে একজনের চেহারার বর্ণনাসহ বিভিন্ন তথ্য উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে তদন্তকারী সংস্থা।

র‌্যাব, পুলিশ, ডিবি কর্মকর্তাদের নিলয়ের বন্ধু ‘মিঠু’কে ঘিরে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। নিলয়কে হত্যার পরপরই ছুটে আসে তার বন্ধু মিঠু। পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে গোড়ানের বাসায় গিয়ে নিলয়ের স্ত্রী আশামণি তার বোন তন্নী ও মিঠুকে দেখতে পান। নিলয়ের লাশ মর্গে নিয়ে প্রাথমিক তদন্ত শেষে পুলিশ পুনরায় নিলয়ের বাসায় ফিরে আসে। এসময় মিঠু ওরফে মিঠুনের সঙ্গে কথা বলতে চেয়েছিল পুলিশ। কিন্তু মিঠুন র‌্যাব ও পুলিশের অগোচরে নিলয়ের বাসা থেকে সটকে পড়ে। কিন্তু মিঠু গোপনে বাসা ছেড়ে যাওয়ার পর আশামণি পুলিশকে বলেন, তিনি মিঠু নামে কাউকে চেনেন না। এ নামের তাদের কোনো বন্ধু নেই। গতকাল মিঠুর কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। দিনের অধিকাংশ সময় ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে। এদিকে, নীলয়ের কথিত স্ত্রী আশামণি কোথায় আছেন কেউ জানেন না। তার মোবাইলফোনে ফোন করলে রিসিভ করেন গণজাগারণ মঞ্চের এক নারীকর্মী। মূলত এসব কারণেই মিঠু, আশামণিকে সন্দেহের চোখে দেখছে তদন্ত সংস্থাগুলো।

ডিবি পুলিশের একটি সূত্র জানায়, গোড়ানের ওই সড়কে দুটি কুকুর রাতে পাহারা দিত। খুনিরা রাতে পর্যবেক্ষণ করতে গেলে কুকুর দুটি তাদের ধাওয়া দিত। সেজন্য এক সপ্তাহ আগেই পরপর দুরাতে তারা ওই কুকুর দুটিকে হত্যা করে নিজেদের যাতায়াত নির্বিঘœ করে। শুক্রবার ওই দুজনের গ্রিন সিগন্যাল পেয়ে আরও তিন খুনি ঘটনাস্থলে যায়। চারজন বাসায় ঢুকলেও একজন রাস্তায় সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে রাখে বলে জানায় সূত্রটি।

এদিকে ব্লগার নিলয় হত্যার কয়েক ঘণ্টা পর গণমাধ্যমে হত্যার দায় স্বীকার করে যে ই-মেইল পাঠানো হয়েছিল তা চট্টগ্রামের হাটহাজারী এলাকা থেকে করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার (পূর্ব) মাহবুব আলম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়ে বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের পর ঘটনাস্থলে গিয়ে একটি রক্তমাখা টি-শার্ট উদ্ধার করা হয়। টি-শার্টটি হত্যাকারীর বলে আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি। সামাজিক মাধ্যমে ‘আনসার-আল ইসলাম’র পাঠানো ই-মেইলটির বিষয়ে তদন্ত চলছে।

এদিকে ঘটনার তিনদিন পার হলেও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। তবে তদন্তসংশ্লিষ্টরা বলছেন, কয়েকটি বিষয় নিয়ে কাজ করছেন তারা। ইতোমধ্যে নিলয় তার কথিত স্ত্রী আশামণি ও তার বোন তন্নীর মোবাইলের কল লিস্ট পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে। এছাড়া গত কদিন নিলয়ের বাসায় কারা কারা আসা-যাওয়া করেছে তাদের বিষয়ে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নিলয় হত্যার দায় স্বীকার করে ই-মেইল বার্তাটি যে ল্যাপটপ থেকে পাঠানো হয় সেটিও শনাক্ত করা হয়েছে। চট্টগ্রামের হাটহাজারী এলাকার একটি অঞ্চলে ইন্টারনেট ব্যবহার করা হয়। ঘোষণাপত্রের নিচে লেখা নামের ‘মুফতি আব্দুল্লাহ আশরাফ, মুখপাত্র, আনাসার আল ইসলামের (আল-কায়দা ভারতীয় উপমহাদেশ, বাংলাদেশ শাখা) নামটি ছদ্মনাম বলে ধারণা করা হচ্ছে।

হাতিয়ায় ইয়াবা ব্যবসায়ী আটক Inbox

হাতিয়ায় কৃষি উপকরণ, ল্যাপটপ,সাইকেল বিতরণ ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

হাতিয়া পৌরসভা নির্বাচন : দলের মনোনয়ন নিয়ে চলছে তোড়জোড়

হাতিয়ায় শহীদ মিনারে জুতা পায়ে অবসরপ্রাপ্ত সৈনিকদের ফটোসেশন

হাতিয়ায় পল্লী চিকিৎসক ফাতেমা, জীবন বদলে দেওয়ার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত

২৮ ডিসেম্বর প্রথম ধাপে ২৫ পৌরসভায় নির্বাচন

লক্ষ্মীপুরের ডিসি সপরিবারে করোনায় আক্রান্ত

নোয়াখালীতে সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্ধে দুই কিশোরকে খুরের আঘাত

ভয়াবহ হচ্ছে করোনা, প্রাণ গেল আরও ৩৮ জনের

বেগমগঞ্জে ছিনতাই চক্রের ৫ সদস্য আটক

শৌচাগারে না গিয়েই কিশোরের ১৮ মাস পার!

নোয়াখালীতে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

সার্বভৌমত্ব রক্ষায় বাংলাদেশ সদাপ্রস্তুত: প্রধানমন্ত্রী

দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতুর পৌনে ৬ কিলোমিটার

২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ২৮,শনাক্ত ১৮৪৭

এই সম্পর্কিত আরো