‘প্রশ্নবিদ্ধ’ চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড

সোমবার, জুলাই ১৫, ২০১৯

--5_1

ক্রীড়া প্রতিবেদক : নিঃসন্দেহে ক্রিকেটের ইতিহাসে এমন রাত আগে কেউ দেখেনি যেমনটা দেখা গেল গত রোববার। দ্বাদশ বিশ্বকাপের ফাইনালে যেন সব রোমাঞ্চ ঢেলে দিয়েছেন বিধাতা। বলা হচ্ছে, এটিই ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বকালের সবচেয়ে আলোচিত ফাইনাল। এই ‘আলোচিত’ কেবল রুদ্ধশ্বাস প্রতিযোগিতার জন্য নয়, ফেনিয়ে ওঠা বিতর্কের জন্যও। ইংল্যান্ড বহুল প্রতীক্ষিত ট্রফিটি ঘরে তুলেছে বটে তবে সমালোচনা তাদের পিছু ছাড়ছে না। পৃথিবীর নানা প্রান্ত থেকে ক্রিকেটবোদ্ধারা বলছেন, ইংল্যন্ড জয়ী হয়নি বরং জয় তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

বিতর্কের বিষয় একটি নয়, একাধিক। নির্ধারিত ৫০ ওভারে খেলার সমাপ্তি এলো না। ফল হলো টাই। এরপর গড়াল সুপার ওভারে। সেখানেও টাই। কেউ জেতেনি, কেউ হারেনি। তবুও চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড! এ নিয়ে এখন ক্রিকেট বিশ্বে পুরোদমে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। কর্তৃপক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, ইনিংসে যে দলের বাউন্ডারি বেশি তাকেই চ্যাম্পিয়ন করা হয়েছে। তবে এ নিয়ম নিয়ে সমালোচনায় মুখর হয়েছেন সাবেকরা। কেউ কেউ ‘যৌথ চ্যাম্পিয়ন’ ঘোষণার কথাও বলেছেন।

সাবেক কিউই অলরাউন্ডার স্কট স্টাইরিসই সুপার ওভারের সমালোচনায় টুইটারে সরব ছিলেন সবচেয়ে বেশি। আইসিসিকে তামাশা উল্লেখ করে টুইটযুদ্ধে জড়িয়েছেন ধারাভাষ্যকার হারশা ভোগলের সঙ্গে। টাই হওয়াতে তিনি যুক্তি দেখিয়েছেন যৌথ চ্যাম্পিয়নের পক্ষে, ‘অবশ্য ভাগাভাগি করে নেওয়া উচিত। এটা ফ্র্যাঞ্চাইজ ক্রিকেট নয়, এমনকি এমন ম্যাচও নয় যার মাধ্যমে পরবর্তী ধাপের জন্য বিজয়ী নির্ধারণ করতে হবে। এটা হচ্ছে চমৎকার দুটি দলের মাঝে ১০০ ওভারের দুর্দান্ত এক লড়াই। যা টাই হয়েছে।’

সুপার ওভারে টাই হওয়ার পরেও বাউন্ডারি বেশি হওয়াতে চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। এমন নিয়মকে মেনে নিতে পারছেন না অনেকে। বলছেন তা পক্ষে গেছে স্বাগতিকদেরই। আবার অস্ট্রেলিয়ান সাবেক ক্রিকেটার, কোচ টম মুডি বলেছেন, ‘বুঝতে পারছি অনেকে হতাশা প্রকাশ করছে, বাউন্ডারি বিবেচনায় বিজয়ী নির্ধারণটা বিতর্কিত হিসেবে দেখছে। তবে আমি কিন্তু একটি বিষয়ে দ্বিধান্বিত। যারা দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করছে তারা সুপার ওভারে প্রথমে ব্যাট করবে, এটা কীভাবে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড হয়?’

সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীরও যৌথ চ্যাম্পিয়ন ঘোষণার পক্ষে, ‘বুঝলাম না কীভাবে ফাইনাল বিজয়ী ঘোষণা করা হলো বাউন্ডারি বিবেচনায়। হাস্যকর নিয়ম আইসিসি, এটা হতে পারতো টাই। এমন শ্বাসরূদ্ধকর ম্যাচের জন্য আমি দুদলকেই অভিনন্দন জানাচ্ছি। আমার বিবেচনায় দুদলই বিজয়ী।’

কথা এখানেই শেষ নয়। সুপার ওভারের আগেই নিউজিল্যান্ড ম্যাচ থেকে ছিটকে গেছে বেন স্টোকসের ব্যাটকা-ে। ম্যাচের তখন শেষ ওভার চলছে। ছয় বলে দরকার ১৫ রান ইংল্যান্ডের। ট্রেন্ট বোল্টের করা প্রথম দুটি বল ডট হওয়ার পরই ম্যাচের জীবন ফিরিয়ে আনে স্টোকসের দুরন্ত একটি ছয়। তারপরও তিন বলে দরকার ছিল ৯ রান। চতুর্থ বলে রান নেওয়ার সময় মার্টিন গাপটিল ডিপ মিডউইকেট থেকে থ্রো করেছিলেন স্টোকসকে রান আউট করার জন্য। স্টোকস রান নেওয়ার জন্য ক্রিজে ঝাঁপ দিয়ে ঢোকেন। এমন সময় তার ব্যাটে লেগে বল চলে যায় বাউন্ডারি লাইনে। স্টোকস সঙ্গে সঙ্গে দুই হাত তুলে জানিয়ে দেন, এটা অনিচ্ছাকৃতভাবে ঘটে গেছে। এরপর আম্পায়াররা আলোচনা করে ওভারথ্রোর জন্য চার ও দুটি শট রান মিলিয়ে ছয় রান যোগ করেন স্কোরবোর্ডে!

নিউজিল্যান্ড ভাগ্যহত, সেটা না হয় মেনে নেওয়া যায়। কিন্তু এখন আম্পায়াররাই বলছেন, ওই ঘটনায় ছয় নয়, হওয়ার কথা পাঁচ রান! এ প্রসঙ্গে প্রখ্যাত আম্পায়ার সাইমন টাফেল ফক্স স্পোর্টসকে বলেন, ‘এটা পরিষ্কার ভুল…ভুল সিদ্ধান্ত। তাদের (ইংল্যান্ড) পাঁচ রান দেওয়া উচিত ছিল, ছয় নয়।’ নিয়মানুযায়ী, ওভারথ্রো থেকে বাউন্ডারি এলে সেই চার রানের সঙ্গে দৌড়ে নেওয়া তত রানই যোগ হবে, ফিল্ডার বল ছাড়ার আগে যতবার দুই ব্যাটসম্যান রানিং বিটুইন দ্য উইকেটে পরস্পরকে অতিক্রম করতে পেরেছেন।

ওই ঘটনার ভিডিও রিপ্লেতে দেখা গেছে, গাপটিল বল থ্রো করার সময় স্টোকস ও রশিদ দ্বিতীয় রানের জন্য নিজেদের অতিক্রম করেননি। পাঁচবারের বর্ষসেরা আম্পায়ারের পুরস্কার জেতা টাফেল আরও জানান, ‘নিয়ম অনুযায়ী ইংল্যান্ড যেহেতু দৌড়ে দ্বিতীয় রান নিতে পারেনি সেক্ষেত্রে স্টোকস নয়, পঞ্চম বলটি খেলা উচিত ছিল আদিল রশিদের। আর শেষ দুই বলে ৩ নয়, ৪ রান দরকার হতো তাদের।’ টাফেলের এই বক্তব্য বিতর্কের আগুনে ঘি ঢালছে অবশ্যই। তার সঙ্গে সুর মিলিয়ে অনেক আম্পায়াররাই এমন কথা বলে চলেছেন, যা প্রশ্নবিদ্ধ করে তুলেছে দ্বাদশ বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ফাইনালকে।

ম্যাচ শেষে বিশ্বকাপ জয়ী ইংলিশ ওপেনার জেসন রয় টুইট করেন, ‘এটাই ক্রিকেট!’ আর হেরে বেদনায় বিমর্ষ কিউই অলরাউন্ডার জিমি নিশাম লিখেন, ‘অনেক কষ্ট দিলো। আমার মনে হয় না আগামী কয়েক দশকেও আমি এই ম্যাচের শেষভাগ ভুলতে পারব।’


রাজধানীর হাসপাতালগুলোতে ডেলটার বিপজ্জনক প্রভাব

দেশে একদিনে ৮৫ মৃত্যু, ৭২ দিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত

করোনা ও উপসর্গে ১১ জেলায় মৃত্যু অর্ধশতাধিক

হাতিয়ায় আওয়ামীলীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

হাতিয়া উপজেলা শিক্ষা অফিসে ভয়াবহ অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ

নোয়াখালীতে আরও ১১৫ জনের করোনা শনাক্ত

নোবিপ্রবি লকডাউন ঘোষণা

পরিকল্পিতভাবেই এগোচ্ছি : প্রধানমন্ত্রী

একনেক সভায় ১০ প্রকল্পের অনুমোদন

বেগমগঞ্জে বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেল কাপড় ব্যবসায়ীর, আহত ২

নোয়াখালীতে করোনা আরও ৬৯ জনের

৭ জেলায় ৭ দিনের লকডাউন মঙ্গলবার থেকে

নোয়াখালীতে অস্ত্রসহ ১২ মামলার আসামি গ্রেপ্তার

নোয়াখালীতে ২৪ ঘন্টায় করোনা শনাক্তের হার ২৩ শতাংশ

ওবায়দুল কাদেরকে কটূক্তিকারীর শাস্তির দাবিতে নোয়াখালীতে বিক্ষোভ মিছিল

এই সম্পর্কিত আরো